বিশ্ব নদী দিবস ও আমার কিছু কথা 

Tapas Das

মুখে মাস্ক, হাতে ঘন ঘন জীবাণু নাশক তরল আর চেনা-পরিচিতর মৃত্যুর খবর। একেই অনেকে বলতে চাইছেন ‘নিউ নরমাল’। নদী বাঁচাও জীবন বাঁচাও আন্দোলনের সাথী-দাদা ত্রিলোকেশ কুণ্ডু বেশ মজার মজার উদাহরণ দিয়ে কঠিন কথা বোঝাতে পারেন। সেদিন বলছিলেন, ‘কোন ছুতোর মিস্ত্রীর কাজ করতে গিয়ে হাত কেটে গেলে দেখবেন ক্ষততে গালার প্রলেপ দেবেন, পান বিক্রেতা চুন, গেরেজের মিস্ত্রী পোড়া মোবিল, আর গৃহস্থালি কাজে হাত কাটলে মা-বোনেরা এক মুঠো চিনি দিয়ে চেপে ধরেণ। সহজলভ্যতা আমাদের উপশম দেয়। অর্থাৎ যে যেমন পরিবেশে আছেন তার বাঁচার রসদ সেখান থেকেই আসে। আবার অপর দিকে বহুজাতিক সংস্থার…

প্রিয় না হয়ে ওঠা একটি নদী ।। তাপস দাস

তাপস

রাস্তার নাম “করুণাময়ী ঘাট রোড”। ‘ঘাট’ কোন কালে ছিল?  সেই ঘাটের রাস্তায় কারা, কোথায়, কোথায় যাওয়া-আসা করতেন?  কী ছিল ঘাটের কড়ি?  সঙ্গে থাকতো কী?  জানা নেই। কে জানেন তাও জানা নেই। আমার ঐ পথ দিয়ে যাওয়া-আসা শুরু হয় ১৯৮৬-৮৭ সালে। তখনো করুণাময়ী ব্রীজ হয়নি। গাড়ী পথে কলকাতার সঙ্গে যোগাযোগ সিরিটি-ভাটিখানা-মহাবীরতলা হয়ে টালিগঞ্জ ব্রীজ পার পথে। সোদপুর বাজারে বাসের অপেক্ষায় দাঁড়ানো পথিককে কোথায় যাচ্ছো প্রশ্ন করলে উত্তর আসতো, “কলকাতা যাচ্ছি”। বেহালা মিউনিসিপালটি ‘এডেড এরিয়া’’রূপে কলকাতায় যুক্ত হলেও পুরনো অভ্যাস তখনো রয়ে গিয়েছে। আর হবে নাই বা কেন বড় বড় ইট ভাটার…

প্রসঙ্গ: ভারতের সাম্প্রতিক নদী আন্দোলন ও আমার কিছু কথা

    বন্দো মাতা সুরধনী পুরাণে মহিমা শুনি   পতিত পাবনী পুরাতনী বিষ্ণুপদ উপাধান দ্রবময়ী তব নাম    সুরাসুর নরের জননী।।  -কবিকঙ্কন মুকুন্দরাম চক্রবর্তী   ভারত উপমহাদেশের শুধু ভৌগলিক রূপরেখা তৈরি নয় সভ্যতা, ইতিহাস এবং সংস্কৃতির সাক্ষী ও ধারক-বাহক আমাদের গঙ্গা নদী। অসংখ্য জীব-বৈচিত্র্যর প্রাণশক্তি যুগিয়ে চলেছে গঙ্গা নদী। ‘স্বর্গের নদী’ নামে খ্যাত ‘গঙ্গা-যমুনী-তহজীব’ এই নদীকে ঘিরে গড়ে উঠেছে ভারতীয় সভ্যতা। ভারত, তিব্বত (চীন), নেপাল, ভূটান, বাংলাদেশ জুড়ে ১০৮৬০০০ বর্গ কিমি জুড়ে গঙ্গা অববাহিকা।  ভারতের ২৬ শতাংশ ভূমিখন্ডে ৮৬১৪৫২ বর্গ কিমি গঙ্গা ও তার উপনদী ভারতের মূল জল বহনের আধার।  উত্তরে…

শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

শুভেচ্ছা

তৃতীয় প্রতিষ্ঠা দিবসে অফুরাণ ভালবাসা আর জানাই ধন্যবাদ রিভার বাংলা ডটকম এর সাথীদের। নদীমাতৃক বাংলায় নদীকে কেন্দ্র করে গান, কবিতা, গল্প, উপন্যাস চলচিত্র আর আছে অনেক আবেগ। কিন্তু ফয়সাল ভাই আর তার সাথীরা নদী বাঁচানোর কথা ভেবে তার খবরাখবর বিশ্বের বাংলাভাষী মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে যে ভূমিকা পালন করছে তার জন্য ধন্যবাদ ও অভিনন্দন। বাংলা মূলত ভাটির দেশ। ভারত উপমহাদেশের অসংখ্য নদী তার প্রবাহ শেষ করে এই ভূখণ্ডে। নদীর জল নদীর পলি নদীর গতি সবকিছুকে মানুষ ব্যাবহার করেছে বছরের পর বছর ধরে জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে। ভাটিয়ালী থেকে দক্ষিণরায় বনবিবির গান বাংলার…

অঞ্জনা নদীর তীরে

অঞ্জনা-নদী-তীরে চন্দনী গাঁয়ে পোড়ো মন্দিরখানা গঞ্জের বাঁয়ে জীর্ণ ফাটল-ধরা – এক কোণে তারি অন্ধ নিয়েছে বাসা কুঞ্জবিহারী। আত্মীয় কেহ নাই নিকট কি দূর, আছে এক লেজ কাটা ভক্ত কুকুর। [রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর] এটাই তো সত্যি। মানুষের তৈরি মন্দির পোড়ো মন্দিরে পরিণত হয়।পোড়ো মন্দির বিগ্রহের জন্য নয় তা অন্ধ নিকুঞ্জবিহারীর আশ্রয়। সঙ্গী লেজ কাটা ভক্ত। এতো গেলো মানুষের তৈরি ভাঙা-গড়ার চক্র। কিন্ত প্রকৃতির সৃষ্টি নদী কে মানুষ কি ভাবে নদী থেকে খাল -খাল থেকে -শহরের বর্জ্য বয়ে নিয়ে চলা নর্দমা তে পরিণত করতে পারে? তা দেখতে পেলাম কৃষ্ণনগরে। সমৃদ্ধশালী শহর কৃষ্ণনগর ।…

কানাই খাড়ির পাড়ে জীবনকে চেনা 

কানাই খাড়ির পাড়ে জীবনকে চেনা 

‘সারান্ডা’ সাতশো পাহাড়ের দেশ। সেই পাহাড়ের রূপ দেখে বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, তিনি কাশ্মীর দেখতে চান না, কারণ লোকে বলে কাশ্মীরের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে মানুষ অন্য সব রূপ ভুলে যায়। তিনি সারান্ডা’র পাহাড়-জঙ্গলের রূপ ভুলতে চাননি। তেমনি ভারতের প্রায় সব বড় নদী এবং অসংখ্য ছোট নদী দেখার সুযোগ আমার জীবনে এসেছে নদীর কোন না কোন অবস্থায়। সেই নদীর মধ্যে একটি  ‘প্রিয় নদী’ বাছাই করার কোন ইচ্ছা আমার হয় না কখনো। সব নদী দেখার, নদীর একেক গতিতে দেখার একেক রকম আনন্দ। তাই একটি নদীর গুণ মুগ্ধতার  বর্ণনা করার চেয়ে ভালো কোন একদিনের…

ভারতে গঙ্গা রক্ষায় অনশন, ধর্ণা অবস্থান অনুষ্ঠিত

গঙ্গা বঁচাতে অনশন চলছে

ব্রিটিশ ভারতে ১৮৩৯  সালে প্রথম গঙ্গার উপর বাঁধ তৈরী হয়। উচ্চ গঙ্গা খাল তৈরী করা হয় ১৮৫৪ সালে। শাখা খাল সমেত ৫৯৫৬ মাইল খাল খনন করে শুরু হয় হিমালয় থেকে নেমে আসা গঙ্গার জল বন্টন। সেই থেকে একের পর এক বাঁধ নির্মাণ ভারত উপমহাদেশের ধারক ও বাহক নদীর শোষণ আজ ও অব্যাহত। সাধারণ মানুষের প্রতিবাদ -প্রতিরোধ কোন দিনই এই শোষণ কে স্তব্ধ করতে পারেনি। শুধু উত্তরাখন্ড হিমালয়ে প্রায় ২০০টি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প করতে চায় সরকার। যার মধ্যে ৩৭ তৈরী বেশ কিছু নির্মীয়মান বা অদূর ভবিষ্যতে তৈরী হবে। গাঙ্গেয় অববাহিকা জুড়ে এর…

নদীর জন্য আত্মবলিদান করছেন মানুষ : আসুন আমরাও সোচ্চার হই

Tapas Das

সনাতন ভারতবর্ষকে চেনা হয় সাধু-সন্তদের দেশ রূপে। কিন্তু একের পর এক সাধু সন্যাসীর বেশধারী ভন্ডের কৃত্তিকলাপ আর রাজনৈতিক নেতাদের অযাচিত ধর্মীয় ভাবাবেগে অনুপ্রবেশ ঘটেছে আমাদের দেশে। ফলে “ধার্মিক বা সন্ন্যাসী” শব্দ সন্দেহ আর ভীতির সঞ্চার করছে । সঙ্গে উগ্র হিন্দুত্ববাদীর হাতে একের পর এক প্রগতিশীল মানুষের হত্যা, দেশদ্রোহী,শহুরে নকশালের নামে কবি লেখক চিন্তাবিদ, সমাজ কর্মীদের অনৈতিক গ্রেপ্তার হচ্ছে যা সাধারণ মানুষের মনে গভীর ক্ষতের সৃষ্টি করে চলছে। দেশ জুড়ে অসহিষ্ণুতা বেড়ে চলেছে। সনাতন ভারতবর্ষে ছিল প্রকৃতি নির্ভর জীবন যাপন, প্রকৃতির সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক তৈরি এবং প্রকৃতি এবং মানুষের নেওয়া ও…

নদী বাঁচাও জীবন বাঁচাও – বালুরঘাট কনভেনশন রিপোর্ট

বালুরঘাট

নদী বাঁচাও জীবন বাঁচাও এই স্লোগানকে সামনে রেখে গত ২৮-২৯ জুলাই ২০১৮, ভারতের বালুরঘাট শহরের সুবর্ণতট সভাগৃহে বালুরঘাট কনভেনশন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন, ভারতের নদী রক্ষা আন্দোলনের কর্মী তাপস দাস। বালুরঘাট কনভেনশন রিপোর্টটি কলকাতা থেকে “রিভার বাংলা” ডট কমের জন্য পাঠিয়েছেন তিনি।- সম্পাদক নদী বাঁচাও জীবন বাঁচাও আন্দোলন গড়ে তোলার চেষ্টা হচ্ছে দেশ জুড়ে। সেই লক্ষ্যে বালুরঘাট কনভেনশন অনুষ্ঠিত হলো গত ২৮-২৯ জুলাই ২০১৮, বালুরঘাট শহরের সুবর্ণতট সভাগৃহে। বালুরঘাট কনভেনশন আহায়ক শ্রী বিশ্বজিৎ বসাক অথিতিদের বরণ করেন। এরপর বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও রাজনৈতিক নেতা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন পর্ষদের সদস্য শ্রী বিপ্লব মিত্র মহাশয়…