নদী রক্ষার দাবিতে জেগেছে জনতা, জেগেছে রাষ্ট্রনায়ক

রাষ্ট্রনায়ক

তাড়াইল [ কিশোরগঞ্জ ] :  রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, দুর্নীতি যেই করুক, তিনি যে দলেরই হোক না কেন, কোনো অবস্থায়ই তাকে ছাড় দেয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের দল থেকে অভিযান শুরু করেছেন। ছাত্রলীগ, যুবলীগ, আওয়ামী লীগসহ যাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া যাবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইননানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। বুধবার [৯ অক্টোবর ২০১৯] বিকেলে কিশোরগঞ্জের তাড়াইল মুক্তিযোদ্ধা সরকারি কলেজ মাঠে তাড়াইল নাগরিক কমিটি আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এসব কথা বলেন। রাষ্ট্রপতি বলেন, সরকার সমাজ থেকে দুর্নীতি নির্মূলে একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ নিয়েছে।…

বাঁচলে নদী বাঁচবে পৃথিবী

বাঁচলে

গেল ২২ সেপ্টেম্বর ছিল বিশ্ব নদী দিবস। যথার্থ প্রাণের দাবী নিয়ে এবারেও নদীমাতৃক বাংলাদেশে পালিত হয়েছে বিশ্ব নদী দিবস। ছোট বড় তেরো শত মতান্তরে সাতশো মৃতঃপ্রায় নদ-নদীর দেশ বাংলাদেশ। বিশ্বসভার নদী ভাবনা আর বাংলাদেশের নদীরক্ষা আন্দোলন এবার নাড়া দিবে স্ববেগে।নদীরক্ষা না হলে আর রক্ষা নেই। সৌরজগৎ এর একমাত্র প্রাণের বসতি পৃথিবীনামক গ্রহের। ক্ষিতি অপঃ তেজ মুরৎ ও বোম এই পাঁচটি মূল উপাদানে পৃথিবীর সৃষ্টি। একটি উপাদানের পরিপূরক আরেকটি। প্রকৃতির অপার লীলায় একটি আরেকটির ফ্রিকোয়েন্সি যেন। আঠারো হাজার মাখলুক তারি বাস্তুুঃসংস্থান নিয়ে বেঁচে আছে।মাটিকে যৌবনা করে পানি আর পানিকে তেজালো করে…

গল্প : পদ্মার সাথে বিনিদ্র বাসর

গল্প

উচ্চ মাধ্যমিক পেরিয়ে স্নাতকের করিডোরে পা রাখলো অমিত। স্কুল-কলেজের সেরা ছাত্র সে। এরইমধ্যে প্রাচ্যের একটি উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার জুনিয়র অফিসার হিসেবে চাকরির দরখাস্ত করেছিল। কলমের জোরে নিয়োগপত্র ও দ্রুত চলে আসে। যৌথ পরিবারের সবাই খুশি। এতো ভাল চাকুরী সহজে মিলে না। অমিত নিয়োগপ্রাপ্ত হয় ধান নদী খাল এই তিনে বরিশাল জেলায়। ২০০৩ সালে তখন বরিশাল জেলা ছিলো। ছামান গোছগাছ করে নিয়োগপত্র সংঙ্গে করে নরসুন্দাপাড়ের অমিত পাড়ি দিলো ধানসিঁড়ির উদ্দেশ্যে। ঢাকার সদরঘাট থেকে বুড়িগঙ্গা হয়ে পদ্মার উপর দিয়ে সারারাত লঞ্চে বরিশাল। নভেম্বরের মাঝামাঝি শীতল পদ্মার বুকে পারাবত-১ নামক লঞ্চটির ছুটে চলা…

আফজল হোসেন আজম এর কবিতা “নদীকথা”

পূবেতে বন্দনা করি জগৎ বন্ধু ভানুশ্বর নিধিরবি উঠে তুমি বিশ্ব করো যে পসর। পশ্চিমে বন্দনা করি মক্কা ও মদিনায় দয়াল নবী শুয়ে আছে নয় কারো যে অজানা। দক্ষিনে বন্দনা করি বঙ্গোপ সাগর যে সাগরে বাইয়া খাইতো চান্দু সওদাগর। উত্তরে বন্দনা করি হিমালয় পর্বত যেথায় ঋষি মনি ঠাঁকুর সদায় থাকতো ব্রত। এইবারে নদ- নদীর কথা যাবো তোলে তারা সবি মানবস্বত্তা এ ভূ- মন্ডলে। সৃষ্টিকর্তার অপার লীলা নদ ও নদী বসুন্ধরা রুগ্ন হবে তাদের হারাই যদি। হিমালয়ের হিমবাহে আসিলো মা গংঙ্গা মায়েরকোলে শুয়ে আমরা আজ চতুরঙ্গা। পদ্মভূষণ করলো মোদের কণ্যা তারি যমুনা…

নববর্ষের প্রত্যাশা : ভালো থাকবে আমার নদী সুতি

বৈশাখে নদী ভাবনা - আফজল হোসেন আজম

রিভার বাংলা’র বৈশাখী আয়োজনে কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল উপজেলাস্থ সুতি নদী নিয়ে লিখেছেন নদীকর্মী আফজল হোসেন আজম।- সম্পাদক আজ চৈত্রের শেষ দিন। কেমন জানি সাজ সাজ রবে মেতে উঠেছে আমার দুই পাড়ের বাঙালী। তাদের স্বত্বা নিয়ে লড়ছে বুঝি।আর্য আর অনার্যদের ঝাঁপি মাথায় নিয়ে একি আনন্দের নববর্ষ! ১লা বৈশাখ ১৪২৬ বংঙ্গাব্দ। শুভ নববর্ষ। বাঙালী স্বত্তার একটি দিন। সারাবিশ্বের বিস্ময়! বাঙ্গালী ওরা।আমি সূতী।ওদের স্বত্তার অংশীদার। পিতা নরসুন্দার বড় মেয়ে। আমার বুঝি নববর্ষ নেই। আমি তোমাদেরি মেয়ে। কেমন সুন্দর তুলতুলে নামটি রেখেছিল দাদা ব্রক্ষ্রপুত্র। যৌবনে লালপাঁড়ের শাড়ী পড়তাম। কোমল সূতার বুননের।বাঙ্গালী তাঁতীদের হাতের নিখুঁত…

ফুলেশ্বরীর আত্মকথা

ফুলেশ্বরীর আত্মকথা

নদীকথা: আমি ফুলেশ্বরী। স্বাধীন দেশের পরাধীন একটি নদী। আমার জন্ম কবে আমি জানি না। আমি যখন বাল্যশিক্ষা বইপড়ি তখন একদিন দাদুর মুখে শুনেছি আমার জন্মক্ষন। দাদুভাই ব্রহ্মপুত্রের কোলে শুয়ে শুনেছি আমার জন্মকাল। দাদুভাই বলেছে, লক্ষ বছর আগে তার কোলে জন্ম নেয় তার ছেলে নরসুন্দা। এই নরসুন্দার কোলে আমার জন্ম। আমরা আমাদের বাবা নরসুন্দার দুটি নয়নের মণি ফুলেশ্বরী ও সূতী নদী। আমাদের দু’বোনের মধ্যে আমি ছোট। এইতো গেলো জন্ম ইতিহাস। এরপর আমরা দু’বোন ধীরে ধীরে বড় হতে থাকি। রুপ যৌবণ আর ঢেউয়ের খেলায় মাথিয়ে রাখি চারপাশের প্রতিবেশী ভাইবোনদের। কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে আমাদের দু’বোনের…

প্রকৃতির সহমরণঃ নদী ও গান 

প্রকৃতির সহমরণঃ নদী ও গান

মানবসৃষ্ট বৈশ্বিক চাহিদা ও যান্ত্রিক সভ্যতার যুগে হারিয়ে যাচ্ছে নদী। স্হলপথ যোগাযোগ ও অপরিকল্পিত শহরায়ন নগরায়ন এর জন্য গতিপথ হারাচ্ছে নদী।প্রখর জনসংখ্যার ক্রমবৃদ্ধি ও অবাধ বুক্ষ নিধনের কারনে আবহাওয়া ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে নাব্যতা হারাচ্ছে নদী।টলটল ঢেউ আর কলকল অতিথি পাখি, দেশি পাখিদের নেই অবাধ বিচরণ।মৃতপ্রায় নদীগুলোর সাথে সহমরণ ঘটছে সবকিছুর। এর মধ্য নদীমাতৃক বাংলাদের পল্লীগীতি জারি শাড়ী ভাটিয়ালি গানগুলোর অপমৃত্যু ঘটছে। নৌকা নিয়ে আর বরযাত্রী আসে না এখন।কে গাইবে বিয়ের গীত, নৌকার শাড়ি? এ যেন এক অদৃশ্য শত্রু নদী ও গানের। নাব্যতার অভাবে নৌপথ বন্ধ।জলের প্রবাহ নেই নদীতে।সুরের প্রবাহ…

দর্শনে নদীর নিত্যতা

Afzal H. Azam

যে ছেলে নদীর পাড়ে বসে কবিতা লিখে সে ছেলে কখনও গাঁজা খাবে না। যে মানুষ নদীর তীরে বাস করে তারা কখনও অলস হয় না। প্রকৃতির বৈরিতার সাথে যুদ্ধ করে সরল জীবনযাপন করবে।হাজার হাজার বছর ধরে আবহমান বাংলার জীবনযাত্রা সংস্কৃতি, সাহিত্য, সমাজ, শিল্প সবকিছু গড়ে উঠেছে নদী কেন্দ্রিক। আজ নদ- নদীগুলোর যৌবন হারানো মানে বাংলা মায়ের বন্ধ্যাত্ব নেমে আসা। ফুলে, ফলে, ফসলে, সোনার বাংলা আজ নেই। রাসায়নিক নির্ভর কৃষি। হৃদ্যতার ভাটা পড়েছে মানব সমাজে। নদীর কলকলানির মতো সহায়ক সমাজ ব্যবস্হা নেই। একটি ঊর্মি আরেকটি ঊর্মিকে নিয়ে সহাবস্হানের খেলা আর দূর্বার ছুটে…

তাড়াইলে নদী ভাঙ্গন, দেখার কেউ নেই!

নদী ভাঙ্গন

নরসুন্দা, সূতী আর ফুলেশ্বরী এই প্রাচীন তিনটি নদ-  নদী বিধৌত জনপদের নাম তাড়াইল। পূর্বদিকে ফুলেশ্বরী, দক্ষিনে নরসুন্দা আর পশ্চিমে সূতী। তালজাংগার জমিদারের স্ত্রী তারামন সুন্দরির নামানুসারে তাড়াইল উপজেলা নদী বেষ্টিত একটি প্রাচীন জনপদের নাম। তিনটি নদীর সঙ্গমস্থল তাড়াইলের পূর্ব দক্ষিনের মাখনাপাড়া নামক গ্রামের সন্মুখে। মাখনাপাড়া প্রাচীন জেলেপল্লী নামে খ্যাত।এখানে প্রাচীন একটি মন্দির ও একটি শ্মশানও রয়েছে। তিনটি নদীর মিলনস্থলে বর্ষাকালে প্রবল স্রোত বহমান থাকে।ফলে সঙ্গমস্থলের মোহনা থেকে মাটি ও পলল সরে গিয়ে গভীরতা বৃদ্ধি পায়। যার কারনে শুকনো মৌসুমে পানি নিচে নেমে গেলে মাখনাপাড়াসহ আশপাশের এলাকায় ভূমিধস শুরু হয়। বিগত…

একটি নদী ও নারীর আত্মাহুতি :  আফজল হোসেন আজম

।। রিভার বাংলা ডট কম ।। আমার স্বচক্ষে দেখা ও বয়োজ্যেষ্ঠদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যমতে প্রাচীনকালে নরসুন্দা নদ থেকে সৃষ্ঠ ফুলেশ্বরী একটি খরস্রোতা বৃহৎ নদী ছিল। কিশোরগঞ্জ সদরের নীলগঞ্জ হতে এটি নরসুন্দার শাখা নদী হিসেবে তাড়াইলের তালজাংগা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম হয়ে রাউতি ইউনিয়নে আসে।রাউতির কুরপাড় হয়ে চেংগুরিয়া, কৌলি, হরিগাতী, কারংকা,বানাইল,দাউদপুর, নওগাঁ হয়ে কেন্দুয়া উপজেলার গগডার পাশ দিয়ে সেকান্দরনগর গ্রাম বেধ করে বোরগাঁও দিয়ে তারাইলের সূতী নদীর সাথে মিলিত হয়।যা এখন পথে পথে বাকরুদ্ধ মৃতপ্রায়। বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলাকবি ও বাংলা মঙ্গল কাব্যের প্রথম সংকলক( আত্মীয়সূত্রে প্রাপ্ত কবি নারায়ন দেবের) চন্দ্রাবতীর…