এই সময়ে যেমন আছে আমার নদী : তুহিন শুভ্র মন্ডল

আমার

এই সময়।এই সময়টাকে কিভাবে ব্যাখ্যা করা যায়? বিশেষ সময়?  জরুরী সময়?  ভয়ংকর সময়? মহামারি পেরিয়ে অতিমারির সময়? কিভাবে? সব ভাবেই বলা যেতে পারে।আর একভাবে বলা যেতে পারে যে এটা মানব সভ্যতার বড় সঙ্কটের সময়। কিন্ত প্রকৃতির কাছে? আমার নদীর কাছে? এ বড় সুখের সময়, আনন্দের সময়। এই সময়ে কেমন আছে আমার নদী? আমার মনে হয় ভাল আছে এবং খুব ভাল আছে। এবং যতটুকু অনুভব করেছি এ নদীকে সে এমন ভালই সবসময় থাকতে চায়। করোনা ভাইরাসের ভয়ংকর এই সময়ে মানুষের পদচারণা কম। যান্ত্রিক সভ্যতা আর উন্নয়নের ভুল ব্যাখ্যায় মেতে থাকা মানুষ…

মাঝির তুলনায় জেলেদের করোনা সংক্রমনের ভয় বেশি, কিন্তু কেন?

জেলেদের করোনা

ভারতের দক্ষিণদিনাজপুর থেকে : আচ্ছা বলুন তো যারা জেলে অর্থাৎ মৎস্যজীবী করোনা পরিস্থিতির ফলে তাদের অবস্থা কি? কি আবার? যথা পূর্বং তথা পরং।অর্থাৎ সোজা ভাবে বললে একই। করোনা পরিস্থিতির আগেও যা, পরেও তা। আর মাঝি দের অবস্থা? তাদেরও তো একই। কেন? সেই কথাতেই আসছি। তবে হ্যাঁ, মৎস্যজীবী বা জেলেদের করোনায় আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা তুলনায় বেশি। সে কথাও বলবো। খুব সহজ ভাবে বলা যেতে পারে গত এক মাস থেকে করোনা ভাইরাসের ভয়াল দিক আমাদের সামনে এসেছে।এই এক মাসে নদীর অবস্থা কি ভাল হয়েছে? উত্তর হচ্ছে না।বর্ষা মরশুম আসতে এখনও অনেক দেরি।এই…

ব্রীজই মেরে ফেলেছে সিংগুয়া নদীকে

বাংলাদেশকে নদীমাতৃক দেশ বলা হলেও বর্তমানে দেশের অনেক নদী মৃত প্রায়। ইতিমধ্যে অনেক নদী তার নাব্যতা হারিয়েছে। প্রাকৃতিকভাবেই নদ-নদীগুলো তাদের নিজস্ব গতিতে চলে। নদীতে বাঁধ, অবৈধ দখল, মাটিভরাটসহ বিভিন্ন আবর্জনা ফেলে মানুষ নদীর গতিপথে বাঁধার সৃষ্টি করছে। অপরিকল্পিত নকশায় নদীতে নীচু করে ব্রীজ নির্মাণ করায় নদী তার নাব্যতা হারাচ্ছে, নদীর গতিপথে বাধাঁ সৃষ্টি হচ্ছে। যার ফলে যে কোন সময় প্রাকৃতিক দূর্যোগ তৈরি হতে পারে। সিংগুয়া নদীটি পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারসিন্দুরের খামাবিল হতে উৎপন্ন হয়ে গচিহাটা ও নিকলী হয়ে ঘোড়াউতরায় মিলিত হয়েছে। নদীটির দৈর্ঘ্য (প্রায় ২২.৪ কি.মি) কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া , কটিয়াদী,…

ইছামতি বা আত্রেয়ী নয়, সব নদীই আমাদের মনোযোগ দাবি করে

Please Stop River Pollution

Please Stop River Pollution! কিছুদিন আগেই রিভার বাংলাতে ইছামতি নদীর সংস্কার চাই বলে লিখেছিলাম। আর আত্রেয়ীসহ উত্তরবঙ্গ, পশ্চিমবঙ্গসহ ভারতবর্ষের বিভিন্ন নদী- যখনই যাকে কাছ থেকে দেখেছি বা কাজ করেছি তার উপর সেই নদীর কথা, সঙ্কটের কথা, সমাধানের কথা- লিখেছি রিভার বাংলায়। নিউজটি পড়তে ক্লিক করুণ- জীবন- জীবিকার জন্য ইছামতি নদীর সংস্কার জরুরী  এই যেমন ক’ দিন আগেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার পতিরাম পঞ্চায়েত একটি আন্ত: সীমান্ত নদী ইছামতি সংস্কারে উদ্যোগ নিল। বা দক্ষিণ দিনাজপুরের জীবনরেখা আত্রেয়ী নদীতে বসন্ত উৎসবে নদী ও পরিবেশ কর্মীরা নদীদূষণ বন্ধ করার সচেতনতার বার্তা দিলেন তার পরিপ্রেক্ষিতে…

প্রসঙ্গ: ভারতের সাম্প্রতিক নদী আন্দোলন ও আমার কিছু কথা

    বন্দো মাতা সুরধনী পুরাণে মহিমা শুনি   পতিত পাবনী পুরাতনী বিষ্ণুপদ উপাধান দ্রবময়ী তব নাম    সুরাসুর নরের জননী।।  -কবিকঙ্কন মুকুন্দরাম চক্রবর্তী   ভারত উপমহাদেশের শুধু ভৌগলিক রূপরেখা তৈরি নয় সভ্যতা, ইতিহাস এবং সংস্কৃতির সাক্ষী ও ধারক-বাহক আমাদের গঙ্গা নদী। অসংখ্য জীব-বৈচিত্র্যর প্রাণশক্তি যুগিয়ে চলেছে গঙ্গা নদী। ‘স্বর্গের নদী’ নামে খ্যাত ‘গঙ্গা-যমুনী-তহজীব’ এই নদীকে ঘিরে গড়ে উঠেছে ভারতীয় সভ্যতা। ভারত, তিব্বত (চীন), নেপাল, ভূটান, বাংলাদেশ জুড়ে ১০৮৬০০০ বর্গ কিমি জুড়ে গঙ্গা অববাহিকা।  ভারতের ২৬ শতাংশ ভূমিখন্ডে ৮৬১৪৫২ বর্গ কিমি গঙ্গা ও তার উপনদী ভারতের মূল জল বহনের আধার।  উত্তরে…

নদীর জন্য একদিন নয়, প্রতিদিন 

শুধু সরস্বতী পুজোর জন্য একদিনের নয়, বা দুর্গাপুজো- কালিপুজো- ছটপুজোর সময় নয়, নদীর দিকে নজর থাকা উচিত প্রতিদিনের।একটা নির্দিষ্ট পরিকল্পনা দরকার। এবং সেটা পুজোর আগে থেকে। এবং শুধু একটি নদীর একটি ঘাট নয়। সব নদীর, কোন কোন নদীর ঘাট পুজোর জন্য ব্যবহৃত হয়, বিসর্জন দেওয়া হয় সেগুলো ঘিরে একটা বিশেষ পরিকল্পনা নিতে হবে। এবং সেটি অন্তত দু মাস আগে। কারা কোন নদীর ঘাটে প্রতিমা বিসর্জন দেবে তার একটা পূর্ণাঙ্গ তালিকা আগে থেকেই থাকা দরকার। সমস্যা শুধু ক্লাব- পুজো কমিটির পুজোর জন্য নয় বাড়ি বাড়ি প্রচুর পুজো হয়। সেগুলোও বিসর্জন দেওয়া…

জলপাইগুড়ির টেমস ‘করলা’ নদীর চিকিৎসা জরুরী

জলপাইগুড়ির

প্রিয় করলা, হ্যাঁ প্রিয়ই বললাম সমস্ত জলপাইগুড়িবাসী আর নদী সন্তানদের পক্ষ থেকে। কেননা কথা বলে বুঝেছি অসংখ্য মানুষ তোমায় ভালবেসে বুকে ধারণ করেছে। তাই তোমার যন্ত্রনায় তারা যন্ত্রনাক্লিষ্ট। তোমার দুর্দশা দেখে কষ্ট হয় তাদের। তাই তাদের হয়ে এই লেখা। জলপাইগুড়ির ‘জীবন রেখা’ করলা। এই নদী কথা ও কথকতার মেলবন্ধন, সৃজনের অবিসংবাদি উপজীব্য। শুধু কি তাই! পরিবহন এবং জলপাইগুড়ির অর্থনীতির সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সংযুক্ত। অথচ সেই নদী আজ মৃতপ্রায়। ধুঁকছে….. করলার উৎসমুখে যেমন জল স্পর্শহীনা, তেমনই শহরের অংশেও দীর্ণ। বর্ষার সময় ছাড়া জলপাইগুড়িবাসীর এই প্রিয় নদীর কী হাল হয় তা…

নদীর জন্য ভোটার কার্ড চাইছি

ভারতীয় উপমহাদেশে নদীকে বলা হয় মা। আমরা নদীর সন্তান। ছোটবেলা থেকে জেনে আসছি নদীমাতৃক সভ্যতার কথা। এটা তো ঠিকই যে, নদীকে কেন্দ্র করেই সভ্যতা- সংস্কৃতির বিকাশ হয়েছিল। নীল নদ হোক, হোয়াংহো হোক , সিন্ধূ বা গঙ্গা- ভূগোল বইতে তো আমরা কবে থেকেই পড়ছি কেন নদীর পাড়েই, নদীর বুকেই সভ্যতার জন্ম হয়েছিল, শহরের বিকাশ(?) হয়েছিল। অর্থনীতির একটা বড় অংশ নদীর সাথে যুক্ত। সেদিক থেকে দেখলে নদীর কাছে আমাদের অশেষ ঋণ। কিন্ত আমরা কি সেই ঋণ স্বীকার করি? করি না। তাই যদি করতাম তাহলে নদীকে ঘিরেই পরিকল্পনা নিত সরকার। নদীকে ভাল রাখতো…

নদীর দিকে আমাদের দৃষ্টি ফেরানো দরকার দ্রুত 

নদীর

যে নদী জীবন দিল, জীবিকা দিল, দিল পরিচয়- তার দিকে দৃষ্টি ফেরানো আমাদের সর্বাগ্রে দরকার। কেন একথা বলছি? তাহলে কি নদীর দিকে আমাদের দৃষ্টি নেই? সোজাসাপটা বলা ভাল- না নেই। নদীর দিকে আমাদের দৃষ্টি নেই। তাই যদি হতো তাহলে নদীরজন্য অনশন করতে হতো না, নদীর জন্য মানুষকে রাস্তায় নামতে হতো না, নদীরজন্য কনভেনশনের দরকার পড়তো না।নদীর জন্য মৌন মিছিলের প্রয়োজন ছিল না। রাজ্য, দেশ এমনকি দেশের বাইরেও নদীর স্বাভাবিক প্রবাহকে বজায় রাখার জন্য আন্দোলন করতে হতো না। অথচ আমাদের সভ্যতা নদীমাতৃক। নদী নির্ভর জীবন ছিল। নদীকে নির্ভর করেই পরিবার প্রতিপালিত…

নদী নিয়ে কিছু কথা

কথা

আমি নদী ভালোবাসি। নদী নিয়ে যারা কাজ করেন তাদেরকে আমি সম্মান করি। কারণ, সত্যিকার অর্থেই এটি একটি মহৎ কাজ। নদী হলো ধরণীর প্রাণ প্রবাহ। মানুষের দেহের শিরায়-উপশিরায় রক্ত কণিকা যেমনটি প্রবাহিত হয়ে থাকে তেমনি নদীও ধরণীর দেহে সজিবতা বইয়ে দেয়। নদী বেঁচে থাকলেই মাটি সতেজ থাকে। তা না হলে মাটি শুস্ক ও মরুভূমিতে পরিণত হয়। নদীর প্রতি ভালোবাসা থেকেই যারা নদীর নাব্যতা চায়, সুরক্ষার জন্য কাজ করেন তাদের প্রতি আমার ভালোবাসা স্বাভাবিকভাবেই উৎসারিত হয়। আমি নদীকে ভালোবাসি। এই ভালোবাসা কেন জানি স্বতস্ফুর্ত এবং কোনো স্বার্থের সংকীর্ণতার কাছে দায়বদ্ধ নয়। এই…

শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

শুভেচ্ছা

তৃতীয় প্রতিষ্ঠা দিবসে অফুরাণ ভালবাসা আর জানাই ধন্যবাদ রিভার বাংলা ডটকম এর সাথীদের। নদীমাতৃক বাংলায় নদীকে কেন্দ্র করে গান, কবিতা, গল্প, উপন্যাস চলচিত্র আর আছে অনেক আবেগ। কিন্তু ফয়সাল ভাই আর তার সাথীরা নদী বাঁচানোর কথা ভেবে তার খবরাখবর বিশ্বের বাংলাভাষী মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে যে ভূমিকা পালন করছে তার জন্য ধন্যবাদ ও অভিনন্দন। বাংলা মূলত ভাটির দেশ। ভারত উপমহাদেশের অসংখ্য নদী তার প্রবাহ শেষ করে এই ভূখণ্ডে। নদীর জল নদীর পলি নদীর গতি সবকিছুকে মানুষ ব্যাবহার করেছে বছরের পর বছর ধরে জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে। ভাটিয়ালী থেকে দক্ষিণরায় বনবিবির গান বাংলার…

পৃথিবীতে ছড়িয়ে দেবো রিভার বাংলার নাম 

পৃথিবীতে

রিভার বাংলা – নামটার সাথে প্রথম পরিচয় করিয়েছিলেন গল্পদেশ পত্রিকার সম্পাদক গৌতম অধিকারী। তিনি একবার বালুরঘাটে এসেছিলেন। আমাদের এখানকার বিপর্যয় ব্যবস্থাপনা মহকুমা আধিকারিক সঞ্জয় মৌলিক খবরটা দিয়েছিলেন যে, গৌতম দা এসেছেন। তারপর আমরা সকাল বেলায় আত্রেয়ী নদীর ধারে একটা সভা করেছিলাম। বছর দুয়েক থেকে চেষ্টা করি যে, যে কোন সভা যতটা প্রকৃতির কাছে করতে পারি। সেই হিসাবে আমাদের ‘নদীর কাছে এসো’তে সেদিন উপস্থিত ছিলেন গল্পদেশ পত্রিকার সম্পাদক গৌতম অধিকারীসহ বিশিষ্ট জনেরা। সেখানেই গল্পদেশ পত্রিকার সম্পাদক গৌতম অধিকারী (উনি রিভার বাংলার ভারতবর্ষের সম্পাদকও) বলেছিলেন নদী বিষয়ক অনলাইন পত্রিকা ‘রিভার বাংলা’ এবং…