তাপস দাস এর সাক্ষাৎকার

তাপস
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কাল থেকে শুরু হচ্ছে দুইদিনব্যাপী [১৩-১৪ জুলাই- ২০১৯] কলকাতা নদী কনভেনশন। এ উপলক্ষে আমরা কথা বলেছিলাম কলকাতা নদী কনভেনশনের সমন্বয়ক তাপস দাস এর সঙ্গে । সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎকারটি রিভার বাংলা’র পাঠকদের জন্য প্রকাশ করা হল।- সম্পাদক

রিভার বাংলা : রাত পুহালেই কনভেনশন শুরু, প্রস্তুতি কেমন?

তাপস দাস : প্রস্তুতি যাকে বলে এখন তুঙ্গে। পঃবঃ বিভিন্ন জেলার প্রতিনিধিসহ নদীবিশেষজ্ঞ, অর্থনীতিবিদ, ভূতত্ববিদ ,পরিবেশ বিজ্ঞানী সহ দশ রাজ্যের নদীকর্মী, পরিবেশকর্মী, অধিকার আন্দোলনের কর্মী নেতৃত্ব থাকছেন।

রিভার বাংলা : দুইদিনব্যাপী নদী কনভেনশনে মূলত কোন কোন বিষয়ে আলোচনা হবে?

তাপস দাস :  হিমালয় উত্তর পূর্ব ভারত উপমহাদেশের নদীর জন্মস্থান নদীর জীবনী শক্তির উৎস অথচ উন্নয়নের নামে সেই জীবনীশক্তি রোগগ্রস্ত হয়ে উঠছে। তাই হিমালয়ের সঙ্গে সুন্দরবনের ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা হবে। দেশে ৫০০০ এর উপর বড় বাঁধ এবং শুধু গঙ্গা অববাহিকায় ১০০০ এর বেশী বাঁধ-ব্যারেজ আছে তা কিভাবে নদীর ভবিষ্যৎ শেষ করছে সেই নিয়ে কথা হবে। রিভার বাংলার পাঠকরা জানেন, হরিদ্বারের মাতৃসদন আশ্রমে একের পর এক সন্যাসীরা অনশন তপস্যা করছেন নদী রূপী গঙ্গা মাকে বাঁচানোর তাগিদে। প্রকৃতি নির্ভর ভারত উপমহাদেশের পরম্পরা প্রবাহে আন্দোলন গড়ে তোলার বাস্তবতা বিষয় কথা হবে। বন অধিকার আইন -২০০৬ একটি গুরুত্বপূর্ণ আইন যা আদিবাসী বনবাসী মানুষের অধিকার সুনিশ্চিত করার সঙ্গে সঙ্গে বন বাঁচাতে তাঁদের অংশগ্রহণ স্বীকৃতি দেওয়া। সেই বন অধিকার আইন কে বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকার দূর্বল করতে চাইছে। আমারা বন বৃদ্ধি, সংরক্ষণ ও বন অধিকার আইন- ২০০৬ নিয়ে আলোচনা করবো। আমরা কথা বলবো গঙ্গা বাঁচাতে দেশের নদী বাঁচানোর জন্য কোন নির্দিষ্ট আইন তৈরী করা যায় কি না সেই বিষয়। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা নদী আন্দোলনের প্রতিনিধিদের কাছে জানবো, শিখবো আদান-প্রদান করবো দেশের জীবন বাঁচানোর তাগিদে নদী বাঁচাও জীবন বাঁচাও আন্দোলন গড়ে তোলার বাস্তবতা। নদী আন্দোলনের সমন্বয় তৈরীর চেষ্টাই কনভেনশনের মূল লক্ষ্য।

রিভার বাংলা : ভারতে নদী সুরক্ষার ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় সরকার কি যথাযথ দায়িত্ব পালন করছে?

তাপস দাস :  আমাদের বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকার এর মূল লক্ষ্য উন্নয়নের পাথর বাটি দেখিয়ে প্রাকৃতিক সম্পদ বহুজাতিক সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া। বন অধিকার আইন এর মতন মানুষের পক্ষে থাকা আইনকে দূর্বল করা। গত পাঁচ বছরে গঙ্গার জন্য নির্দিষ্ট মন্ত্রক থাকলেও নতুন সরকারে সেই মন্ত্রক তুলে দেওয়া হয়েছে। গতবছের অর্থবরাদ্দ থেকে এই বছরে গঙ্গা পূর্নরজীবনের জন্য অর্থ বরাদ্দ কমানো হয়েছে। এখন হিমালয়ে নদীর অবিরল ধারা রুদ্ধ করে জলবিদ্যুৎ প্রকল্প চলছে। স্বাভাবিক ভাবেই বোঝা যাচ্ছে সরকার কি করতে চাইছে।

রিভার বাংলা : নদী সুরক্ষায় স্থানীয় নাগরিকরা সচেতন হচ্ছে কি? তাদের সম্পৃক্ততা কেমন?

তাপস দাস :   দেশে আন্দোলনকারীদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি হয়েছে। জল নদী বিষয়ক প্রচুর কর্মসূচী পালন চলছে। কিন্তু তা মূল সমস্যা কে আঘাত করতে পারছে না। কারণ সাধারণ মানুষ এই সমস্ত কর্মসূচীতে সেই মাত্রায় সম্পৃক্ত হচ্ছে না। তাই প্রয়োজন আরো সচেতন সক্রিয়তা ও সমন্বয়। সেই চেষ্টায় এই কনভেনশন ।

রিভার বাংলা : অনেক ব্যাস্ততার মাঝেও সময় দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। নদী কনভেনশনের সফলাতা কমনা করছি।

তাপস দাস :  রিভার বাংলাকে ধন্যবাদ এবং অভিনন্দন। নদী রক্ষায় নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার জন্য।

…………………………………………………………………………..

আরো পড়তে পারেন…..

তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

নদী প্রসঙ্গে দিল্লি-ঢাকা বৈঠক চান মমতা

নদী ‘জীবন্ত সত্তা’ : হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ

সংশ্লিষ্ট বিষয়