ভারতবর্ষে সব নদীকে জীবন্ত সত্বা হিসাবে ঘোষনা করা হোক 

ভারতবর্ষে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা চাই শুধু গঙ্গা যমুনা নয় সব নদীকে জীবন্ত সত্ত্বা হিসাবে ঘোষণা করা হোক। তাই গতকাল ১৮ আগস্টের ঐতিহাসিক দিনে আমরা আত্রেয়ী পাড় থেকে সেই দাবী তুললাম। পনের আগস্ট নয় তিনদিন পর আঠারোই আগস্ট বালুরঘাট ভারতবর্ষের অন্তর্গত হয়েছিল। সেই দিনটাকে স্মরণ করে তার উপর নির্মিত ফিল্ম আঠারোই আগস্টের অভিনেতা- অভিনেত্রী, নির্দেশকরা ছিলেন।

এতে যে যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে সেগুলো হল বালুরঘাট ও বালুরঘাট বাসীর জীবনে আঠারোই আগস্টের গুরুত্ব, নদীর অধিকার নিয়ে। এছাড়াও নদীকে পরিষ্কার ও দূষণমুক্ত রাখার বিষয়ে আলোচনা হয়। আমরা নিয়েছি নদীরক্ষার শপথ। আর শেষে সবাই মিলে গেয়েছি জাতীয় সঙ্গীত।

গতকাল এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন অমল গোপাল গোস্বামী, সঙ্গীত কুমার দেব, বিনায়ক কৃষ্ণ মজুমদার, গৌতম দাশগুপ্ত, সঞ্জয় চক্রবর্তী, রীতেশ ব্যানার্জী, রিক গুহ, নীলাদ্রি শেখর মুখার্জি, শুভাশীষ চক্রবর্তী, দেবাশিস চক্রবর্তী, পিউ সরকার, সৈকত আচার্য, জগন্নাথ দত্ত, দীআয়ন লস্কর, সনাতন প্রামাণিক, কিঙ্কর দাস। পড়ুয়া দের মধ্যে উপস্থিত ছিল প্রিয়াঙ্কা,বিউটি, সুপ্রিয়া, রিঙ্কি প্রমুখ।

বালুরঘাটের বিভিন্ন আন্দোলনে আত্রেয়ী নদীর ভূমিকা অপরিসীম। আমরা তাই নদীর পাড়ে দাঁড়িয়েই বালুরঘাটের অলিখিত স্বাধীনতা দিবস পালন করলাম এবং এখান থেকেই গঙ্গা, যমুনা সহ আত্রেয়ী ও অন্য সমস্ত নদীকে জীবন্ত সত্বা বলে ঘোষণা করার দাবি জানালাম। ঠিক এর আগের দিন নদী অধিকার দিবস গিয়েছে। কিন্ত এই মহান দিনেই আমরা এই দাবী তুললাম। নদীর অধিকার সুরক্ষিত থাকুক। নদীকে ঘিরে যারা জীবন- জীবিকা নির্বাহ করছে তাদের অধিকার সুনিশ্চিত হোক। জাল যার জল তার এই নীতি কার্যকর হোক। পার্শ্ববর্তী দেশ বাংলাদেশে নদীকে জীবন্ত সত্ত্বা ঘোষনা করা হয়েছে। এবং সেটা কিন্ত ভারতবর্ষের উত্তরাখণ্ড হাইকোর্টের রায়ে গঙ্গা, যমুনা নদীকে জীবন্ত ঘোষনা করার পর। কিন্ত বাংলাদেশ সব নদীকেই বর্তমানে জীবন্ত সত্ত্বা হিসাবে ঘোষণা করার দিকে এগিয়েছে। নদী রক্ষার জন্য ভারতবর্ষে এমনটা কবে হবে?

আরো পড়তে পারেন…..

জলবায়ু পরিবর্তন : সঙ্কটে নদীর মাছ ও মৎস্যজীবী

তাপস দাস এর সাক্ষাৎকার

গল্প : পদ্মার সাথে বিনিদ্র বাসর

সংশ্লিষ্ট বিষয়