সত্যজিৎ রায়ের সিনেমায় নদী সংকেত দেয় 

সত্যজিৎ

বিশ্ববরেন্য চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায় শতবর্ষে পদার্পন করলেন। গতকাল ছিল তাঁর জন্মদিন। তাঁর নির্মিত চলচ্চিত্র যে বাংলা তথা ভারতীয় সিনেমায় নতুন ভাষার আমদানী করেছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।পথের পাঁচালী থেকে যে যাত্রাপথের দিকনির্দেশ তিনি করেছেন তা এক নতুন দিগন্তের সূচনা করেছে। জগত ও বিভিন্ন ধারার সম্পর্কের বিষয়ে কৌতুহল ও নিজস্ব একটা ব্যাখ্যা ছিল তাঁর। সেই ব্যাখ্যান এবং আখ্যান আমরা হয়ে উঠতে দেখি তার সিনেমায়। সত্যজিৎ নদী ভালবাসতেন। তাই তাঁর সিনেমায় নদী নানাবিধ সংকেত দেয়। সময়, সম্পর্ক, পরিস্থিতির একটা দ্যোতনা তৈরি করে।সেসব নিয়েই খন্ডিত ভাবে আলোচনা করবো নিবন্ধে। সত্যজিৎ নদীর…

নদী- জলাভূমি- পরিবেশ রক্ষায় জাগছে মানুষ

মানুষ

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের উত্তরবঙ্গে নদী জলাভূমি ও পরিবেশ রক্ষার দুটি গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি হয়ে গেল। প্রথমটি শিলিগুড়ি মহিলা মহাবিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের আয়োজনে “নদী পরিবেশ ও মানুষ” বিষয়ক কর্মশালা। যেটা হল সাহু নদীর ধারে বৈকুন্ঠপুর ফরেস্ট ডিভিশনের ফারাবারি নেপালি বস্তিতে। আরেকটি শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদ সভাকক্ষে প্রথম উত্তরবঙ্গ নদী ও জলাভূমি বাঁচাও কনভেনশনে। যেখানে উত্তরবঙ্গের প্রতিটি জেলার নদী ও পরিবেশ কর্মীরা উপস্থিত হয়েছিলেন। শিলিগুড়ি মহিলা মহাবিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের আয়োজনে “পরিবেশ নদী ও মানুষ” বিষয়ক কর্মশালায় অংশ নিয়েছিল প্রায় আটটি কলেজের কলেজ- বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া, গবেষক, অধ্যাপক- অধ্যাপিকারা। বিশ্ব ও স্থানীয় পরিবেশের সমস্যা, পরিবেশের উপাদান হিসাবে…

দেখে এলাম এশিয়ার প্রথম পানি জাদুঘর : অনন্য এক অভিজ্ঞতার কিঞ্চিৎ বয়ান

পানি জাদুঘর! তা-ও আবার এশিয়ায় প্রথম উদ্যোগ! সে কি কথা! পানি নিয়ে আবার জাদুঘরও হয়? সাধারণের মনে এমন প্রশ্ন জাগা খুব একটা অস্বাভাবিক ব্যাপার নয়। এমন সব ভাবনা নিয়ে আমরা যখন জাদুঘরের সামনের সড়কে পৌঁছালাম, তখন ঝরছিল টিপটিপে বৃষ্টির ধারা। তাই কিছুটা দৌড়েই কাকভেজা হয়ে ভেতরে পৌঁছালাম, আমরা চারজনা। বৃষ্টিতে ভেজায় মেয়েদের মুখে কিছুটা বিরক্তির প্রকাশ দেখা গেলেও তাদের মাকে মনে হলো বেজায় খুশী। পটুয়াখালী থেকে কুয়াকাটা যাওয়ার পথে কলাপাড়া উপজেলার পাখিমারা বাজার। এই পাখিমারা বাজারের অদূরেই একটি দোতলা টিনের বাড়িতে গড়ে তোলা হয়েছে পানি বিষয়ে এশিয়ার প্রথম জাদুঘর। পাখিমারা…

“আত্রেয়ীর উপাখ্যান”-শুধু একটি নাটক নয়, জীবনের উপাখ্যান 

আত্রেয়ীর

গ্রীণ থিয়েটারের চর্চা দীর্ঘদিন ধরেই করে বালুরঘাটের কাছেই থাকা অযোধ্যা কে ডি বিদ্যানিকেতন। তাদেরই নবতম প্রযোজনা “আত্রেয়ীর উপাখ্যান”। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার প্রধান নদী আত্রেয়ীকে নিয়েই এই উপাখ্যান। স্কুলের ছাত্র- ছাত্রীরা নদীকে ভালবেসে যে তাকেই জীবন করে নিয়েছে তা বোঝা যায় নাটকটির মঞ্চায়ন দেখেই। শুরু থেকে শেষ অবধি গানের সুতোয়, জীবনের কথায়-যন্ত্রণায় মিলে- মিশে আছে নদীরই কথা। আর সে কথাই তাদের কথায়, অভিনয়ে, গানে বাঙ্ময় করে তুললো প্রিয়াঙ্কা, বিউটি, সুশান্ত, রাহুল, সুপ্রিয়া, অর্পিতা, রিঙ্কি, সরস্বতী, ,মানস,দুই বৃষ্টি, পিয়া, বিশ্বজিত, রাজকুমার, বন্দনা, সুনতি, লাবনি, প্রণবরা। নাটকটির শুরুই হচ্ছে নদীকে আমরা যে যে…

নদী সুরক্ষায় ‘বঙ্গবন্ধু নদী পদক’ 

‘বঙ্গবন্ধু নদী পদক

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকার বাংলাদেশের ওপর দিয়ে প্রবাহিত নদ-নদীকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, নদী দখল রোধ, শিল্পকারখানা কর্তৃক সৃষ্ট বর্জ্যের দূষণ রোধ, পরিবেশ দূষণ রোধ, নদীর তীরে ও অভ্যন্তরে অবৈধ অবকাঠামো নির্মাণসহ নদী ভরাট রোধ, নদীর স্বাভাবিক গতিপ্রবাহ রক্ষার কাজে সহায়তা দান, নদীকে নৌ চলাচলে উপযোগী করে নদীর বহুমাত্রিক ব্যবহার নিশ্চিত করা এবং নদীকে দূষণ ও অবৈধ দখল ভরাটমুক্ত করে স্বাভাবিক রূপে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য নিয়োজিত প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিকে প্রথমবারের মতো ‘বঙ্গবন্ধু নদী পদক’ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সোমবার ( ৯ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে বঙ্গবন্ধু নদী পদক…

অঞ্জনা নদীর তীরে

অঞ্জনা-নদী-তীরে চন্দনী গাঁয়ে পোড়ো মন্দিরখানা গঞ্জের বাঁয়ে জীর্ণ ফাটল-ধরা – এক কোণে তারি অন্ধ নিয়েছে বাসা কুঞ্জবিহারী। আত্মীয় কেহ নাই নিকট কি দূর, আছে এক লেজ কাটা ভক্ত কুকুর। [রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর] এটাই তো সত্যি। মানুষের তৈরি মন্দির পোড়ো মন্দিরে পরিণত হয়।পোড়ো মন্দির বিগ্রহের জন্য নয় তা অন্ধ নিকুঞ্জবিহারীর আশ্রয়। সঙ্গী লেজ কাটা ভক্ত। এতো গেলো মানুষের তৈরি ভাঙা-গড়ার চক্র। কিন্ত প্রকৃতির সৃষ্টি নদী কে মানুষ কি ভাবে নদী থেকে খাল -খাল থেকে -শহরের বর্জ্য বয়ে নিয়ে চলা নর্দমা তে পরিণত করতে পারে? তা দেখতে পেলাম কৃষ্ণনগরে। সমৃদ্ধশালী শহর কৃষ্ণনগর ।…

বালুরঘাটে এই প্রথম নদী ও পরিবেশ সাংবাদিক- লেখক তৈরির উদ্যোগ 

বালুরঘাটে এই প্রথম নদী ও পরিবেশ সাংবাদিক- লেখক তৈরির উদ্যোগ 

দক্ষিণ দিনাজপুর, কলকাতা [ভারত] :  সমগ্র পৃথিবীতে নদী ও পরিবেশ এর বিষয়টি নিয়ে এখন জোর চর্চা হচ্ছে। আর হবে নাই বা কেন? নদী আমাদের জীবন আর সুস্থ পরিবেশ আমাদের অস্তিত্ব রক্ষার কেন্দ্রীয় চরিত্র। কিন্ত যেভাবে নদী ও পরিবেশ বিপন্ন হচ্ছে তাতে সচেতনতা বেশী করে প্রয়োজন। প্রয়োজন নতুন প্রজন্মকে আরও বেশী করে এই চেতনায় উদ্বুদ্ধ করা। দরকার আরও বেশী নদী ও পরিবেশের লেখা উঠে আসা। সেই লক্ষ্যেই এই প্রথমবার বালুরঘাট ইনস্টিটিউট অব রিসার্চ অ্যান্ড ডেভলপমেন্টের উদ্যোগে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রেস ক্লাব সভাঘরে হয়ে গেল প্রথম নদী ও পরিবেশের কর্মশালা। নতুন প্রজন্মের মধ্যে…

দেশ পত্রিকার ‘মাতস্তব জলমহিমা’, বিপন্ন গঙ্গার দলিলচিত্র

দেশ পত্রিকার 'মাতস্তব জলমহিমা', বিপন্ন গঙ্গার দলিলচিত্র

দেশ পত্রিকার (এ বি পি প্রকাশনা) দোসরা এপ্রিল সংখ্যা বর্তমানের একটি অতি জরুরী বিষয়কে সামনে তুলে এনেছে।এর জন্য প্রথমেই দেশ পত্রিকার সম্পাদক সুমন সেনগুপ্তকে নদীমাতৃক সবুজ অভিনন্দন জানাই। গঙ্গা নদীকে কেন্দ্র করে যেন নদীর বিষয় টাই উঠে এসেছে।গঙ্গা তো শুধু নদী নয়।ভারতীয়দের জীবন ও সংস্কৃতি। ভারতবর্ষের অর্থনীতি। দেশের অগ্রগতির দ্যোতক। কিন্ত সেই নদীর বর্তমান হাল বেহাল। বিবিধ উপায়ে গঙ্গাকে মেরে ফেলা হচ্ছে। সেই জীবনরেখাকে বাঁচাতে নানান সময়ে বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, কিন্ত গঙ্গার হাল ফিরেছি কি? এখন তো আবার গঙ্গাকে রক্ষার নাগরিক দের দাবীর কথা শুনতেও পাচ্ছেনা…

কানাই খাড়ির পাড়ে জীবনকে চেনা 

কানাই খাড়ির পাড়ে জীবনকে চেনা 

‘সারান্ডা’ সাতশো পাহাড়ের দেশ। সেই পাহাড়ের রূপ দেখে বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, তিনি কাশ্মীর দেখতে চান না, কারণ লোকে বলে কাশ্মীরের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে মানুষ অন্য সব রূপ ভুলে যায়। তিনি সারান্ডা’র পাহাড়-জঙ্গলের রূপ ভুলতে চাননি। তেমনি ভারতের প্রায় সব বড় নদী এবং অসংখ্য ছোট নদী দেখার সুযোগ আমার জীবনে এসেছে নদীর কোন না কোন অবস্থায়। সেই নদীর মধ্যে একটি  ‘প্রিয় নদী’ বাছাই করার কোন ইচ্ছা আমার হয় না কখনো। সব নদী দেখার, নদীর একেক গতিতে দেখার একেক রকম আনন্দ। তাই একটি নদীর গুণ মুগ্ধতার  বর্ণনা করার চেয়ে ভালো কোন একদিনের…

প্রকৃতির সহমরণঃ নদী ও গান 

প্রকৃতির সহমরণঃ নদী ও গান

মানবসৃষ্ট বৈশ্বিক চাহিদা ও যান্ত্রিক সভ্যতার যুগে হারিয়ে যাচ্ছে নদী। স্হলপথ যোগাযোগ ও অপরিকল্পিত শহরায়ন নগরায়ন এর জন্য গতিপথ হারাচ্ছে নদী।প্রখর জনসংখ্যার ক্রমবৃদ্ধি ও অবাধ বুক্ষ নিধনের কারনে আবহাওয়া ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে নাব্যতা হারাচ্ছে নদী।টলটল ঢেউ আর কলকল অতিথি পাখি, দেশি পাখিদের নেই অবাধ বিচরণ।মৃতপ্রায় নদীগুলোর সাথে সহমরণ ঘটছে সবকিছুর। এর মধ্য নদীমাতৃক বাংলাদের পল্লীগীতি জারি শাড়ী ভাটিয়ালি গানগুলোর অপমৃত্যু ঘটছে। নৌকা নিয়ে আর বরযাত্রী আসে না এখন।কে গাইবে বিয়ের গীত, নৌকার শাড়ি? এ যেন এক অদৃশ্য শত্রু নদী ও গানের। নাব্যতার অভাবে নৌপথ বন্ধ।জলের প্রবাহ নেই নদীতে।সুরের প্রবাহ…

নদী ও নারী: এ যে নিজের সাথে নিজের কথোপকথন 

হুমায়ুন কবীর এর ‘নদী ও নারী’ উপন্যাসের কথা মনে আছে? যা নদীর চরের মানুষের জীবনালেখ্য।কিংবা কবি প্রতীপ চন্দ্র বসুর ভালোবাসা নদী? যেখানে তিনি বলছেন নদীকে দেখিনি।জলের কিনারে গিয়ে দেখেছি তোমার মুখ।তোমাকে পাবার জন্য এভাবেই বারবার নদীকে দেখেছি। মহাকবি কালিদাস আবার নদীকে রমণীসদৃশ ব্যাখ্যা করেছেন।এসব থেকে একটা বিষয় বোঝা যায় যে নদী ও নারীর একটা মিল আছে।আত্মীয়তা আছে।আপনতা আছে।প্রকৃতিগত ভাবেই তারা সম্পৃক্ত ।এই ভাবনাটি হঠাৎ করেই মাথায় এলো । নদী যে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় প্রবাহিত হয়।নারীও তো তাই।এক সংসার থেকে অন্য সংসারে তার চলন।এবং সে চলন ক্রমাগত।এসব কথা মনে…

সোস্যাল মিডিয়ার দ্বারা নদী চেতনা বাড়ছে : মত নেটিজেনদের 

সোস্যাল মিডিয়া জরিপ- রিভার বাংলা ডট কম

সোস্যাল মিডিয়া কি নদী চেতনা বাড়ার ক্ষেত্রে সহায়ক? নদী বিষয়ক অনলাইন পত্রিকা রিভার বাংলা’র পক্ষে এমন সমীক্ষা চালানোর জন্য ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলাম। পোস্ট টি ছিল এমন “সোস্যাল মিডিয়ার দ্বারা কি নদী চেতনা বাড়ছে? নাকি সবটাই ভার্চুয়াল ! আপনি কি বলেন? নদীর লেখা কি ভাল লাগছে? জরুরী মনে হচ্ছে? কমেন্ট করুন”। আর তাতে মাত্র একজন শিক্ষিকা ও সামাজিক কাজে উদ্যোগী অঞ্জনা চক্রবর্তী জানিয়েছেন যে সোস্যাল মিডিয়ার দ্বারা নদী চেতনা শুধু কাগজে কলমে বাড়ছে। বাকী বাইশ জন মত দিয়েছেন এই মর্মে যে সোস্যাল মিডিয়ার দ্বারা সত্যিই নদী চেতনা বাড়ছে। নদীর লেখা জরুরী…